মেনু নির্বাচন করুন
পাতা

খেলাধূলা ও বিনোদন

খেলাধূলা

গাবতলি উপজেলার ক্রীড়া জগৎ

গাবতলি জনপদের মানুষ আজীবন সংগ্রামী স্বাধীনতার অগ্র সৈনিক। কালের পরিবর্তনের সাথে সাথে ক্রীড়াঙ্গনে এসেছে নতুনত্ব। নতুনত্ব যতই থাক না নিজস্ব সাংস্কৃতিটায় সবচেয়ে বড়কথা হারানো প্রায় প্রাচীনতম খেলাধূলা দিয়েই গাবতলি ক্রীড়াঙ্গনের কথা শুরু করি।

হা-ডু-ডুঃ-হা- ডু-ডু বর্তমান আধুনিকতার উদ্ভাসিত খেলাধুলার মধ্য থেকে অনেক দূরে হাডুডু।  গাবতলি জনপদের অন্যতম খেলা। হাডুডু খেলার উদ্ভব উৎপত্তি পাক ভারতেই।  তবে এদেশের মধ্যে গাবতলিই হাডুডু খেলার উৎসব সবচেয়ে রমরমা। জাতীয় পর্যায়ে হাডুডু খেলায় গাবতলি শীর্ষস্থানে স্থলাভিষিক্ত হয়। (সত্তর দশকে)।

 

লাঠি খেলাঃ-রূপ রস আর বিচিত্র মুর্হুমুহু ধ্বনিতে যে খেলা আবার বৃদ্ধা বনিতা কার না হৃদয় ছোই? ঢাকের বাড়ী পড়লে কার না কর্ণ কূপে স্পন্দন জাগে? কাসার কঙ্কনে কার না প্রাচীন বাংলার সাংস্কৃতির কথা মনে করিয়ে দেয়। অত্যাধিক আনন্দদায়ক আর কৌশল কলের কল কল্ললে প্রবাহিত হয় লাঠি খেলার বিভিন্ন ঘটনা বহুল গ্রাম বাংলার বিচিত্র চিত্র। এ খেলায় পারদর্শী ছিল গাবতলি জনপদের তরুণ মধ্যবয়সী ও পৌঢ় বৃদ্ধরা। এ খেলা যদিও খুব কম লক্ষ করা যায় তবুও ভোলা যাইনা অনেকের স্বনামধন্য খেলার কলা। যাদের লাঠি খেলার গৌরবে চৌগাছা গৌরবান্বিত।

 

ফুটবলঃ-গাবতলি জনপদে ফুটবল একটি অতি পরিচিত ও আকর্ষণীয় খেলা। এ ক্রীড়াঙ্গনে ক্রীড়ানৈপুন্যে যারা বগুড়া তথা সারা দেশে মাত করিয়েছেন

 

ক্রিকেটঃ-আধুনিক বিশ্ব চাহিদাতে ক্রিকেট সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা। সেই কারণে সেই স্রোত ধারায় গাবতলি আধুনিক তরুণ তরুনদের মধ্যে ক্রিকেট সবচেয়ে জনপ্রিয় খেলা।

 

হ্যান্ডবলঃ-হ্যান্ডবল খেলায় অত্র উপজেলার রয়েছে অগ্রনী ভূমিকা।

এছাড়া ব্যাডমিন্টন, ভলিবল, কেরাম, দাবা তাস উল্লেখযোগ্য।

 

সন্ধ্যা হতেই চাঁদনি রাতে ছন্দমুখর, সংগীত মুখর, গোল্লাছুট, দাড়িয়াবাঁধা, ইত্যাদি খেলা গাবতলি জনপদের আকর্ষণীয় খেলা। হরেক রকমের জলফেলি আর লাটাই, ঘুড়ি, লাটিম, মারবেলসহ বিভিন্ন ধরনের খেলা চৌগাছার ইতিহাস ঐতিহ্য ও সংস্কৃতি বহন করে চলে।

ক্রীড়া সংগঠকঃ- গাবতলি উপজেলার অনেক ক্রীড়া সংগঠক  রয়েছে। যাদের কারনে অত্র উপজেলা ছাড়াও জেলা বা বিভাগ পর্যায়ে খেলাধুলা করে পুরস্কার জয়ের পাশাপাশি গৌরব অর্জনে তাদের ভূমিকা অনস্বীকার্য।

 

ছবি


সংযুক্তি


সংযুক্তি (একাধিক)



Share with :

Facebook Twitter